রমজান মাসে ফিট থাকুন: পর্ব ৩: রোজার ব্যায়াম Ramadan Fitness Series: Part 3: Exercise During Ramadan

সবাইকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা |  প্রিয় পাঠক, কেমন আছেন ? আশা করি সবাই আগের “রমজান মাসে ফিট থাকুন” পর্ব ১ ও ২ পড়ে উপকার পেয়েছেন| যদি ঠিক মত খাওয়া দাওয়া করেন তাহলে এই রমজানে সুস্থ থাকা কোনো সমস্যা নয় |
সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ  “রমজান মাসে ফিট থাকুন”: পর্ব ১পর্ব ২ পড়ার জন্য | কারণ এই দুইটি প্রকাশনা ই এখন পর্যন্ত সবচাইতে বেশি বার পঠিত|
যাই হোক | এখন তৃতীয় পর্বে আসা যাক | “রোজার ব্যায়াম”– অনেকে হয়ত মনে করবেন: সারাদিন রোজা রেখে আবার ব্যায়াম এর কি দরকার? রোজা রেখে আর কিছু করতে পারব না | রোজা র দিনে ব্যায়াম করা সম্ভব ই না | কিন্তু এই চিন্তা ঠিক নয় | আগে আমার ও এটা মনে হত | কিন্তু এই চিন্তা আমার কাছে এখন অসম্ভব|

কেন  রোজায় ব্যায়াম করবেন ?

  • সারাদিন না খেয়ে থাকার ফলে কাজ কর্ম তেমন হয় না বা করতে ইচ্ছা করে না  | তাই দিনের বেলা শরীরের কোনো ক্যালরি খরচ হয় না | এর ফলে মেদ জমতে পারে বা ওজন বাড়তে পারে |
  • অনেক্ষণ না খেয়ে থাকার ফলে ও কম কাজ কর্ম করার ফলে metabolism কমে যায় | ব্যায়ামই পারে metabolism বাড়াতে | metabolism কমে গেলে ওজন বেড়ে যায় |
  • সারাদিন রোজা রেখে ভাজা পোড়া ও গুরুপাক খাবার খাবার ফলে ও অনেকের ওজন বেড়ে যায় | ব্যায়াম ও balanced diet ঠিক মত করলে ওজন বাড়ার সম্ভাবনা থাকে না |
  • ব্যায়াম করার ফলে ফ্যাট বার্ন হয় | তাই ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে বা কমে |
  • যাদের ওজন বেশি তাদের এই রোজায় ব্যায়াম ও balanced diet এর মাধ্যমে ওজন কমাবার এক অপূর্ব সুযোগ |
  • ব্যায়াম ছেড়ে  দিলে ওজন বেড়ে যাবে , শরীর দুর্বল হয়ে যাবে, muscle এর strength কমে যাবে, muscle এর  shape নষ্ট হয়ে যাবে, আপনাকে flabby বা ফোলা ফোলা দেখাবে |
  • রমজানে ভাজা পোড়া ও গুরুপাক খাবার ফলে, কাজ কর্ম কম করার ফলে সবচাইতে তাড়াতাড়ি বাড়ে পেট বা abdomen | কিন্তু যদি এর উল্টোটি করা হয়, তাহলে পেট বাড়বে না; অর্থাৎ  ব্যায়াম ও পরিমিত সুষম খাবার এর মাধ্যমে পেট বাড়বে না এবং কমবে |
  • যারা সৌন্দর্য্য সচেতন এবং সবসময় স্লিম থাকতে চান, তারা ব্যায়াম না ছেড়ে স্লিম ফিগার ধরে রাখতে পারেন |
  • সর্বোপরি সুস্থ্য থাকার জন্যই রোজায় ব্যায়াম দরকার |ব্যায়াম এর মাধ্যমে শরীর থেকে toxin বের হয়ে যায় |
  • তাছাড়া ব্যায়াম করার ফলে শারীরিক শক্তি বাড়ে তাই রোজা রাখতেও কষ্ট হয় না

কি ভাবে ব্যায়াম করবেন  এবং  কিছু ব্যায়াম এর নমুনা  নিচে দেয়া হলো :

  • আমি আগেই বলেছি রোজায় খাওয়া থেকে শুরু করে ব্যায়াম , জীবন যাত্রা সব ই হতে হবে নিয়ম মত , সাধারণ, এবং পরিমিত | Good time management বা সারাদিনে কখন কি কাজ করবেন তা আগে ই ঠিক করে নিলে রমজানে সুস্থ্য সুন্দর মন ও সু স্বাস্থ্য ঠিক থাকবে |
  • যার যার শারীরিক অবস্থা , ফিটনেস লেভেল ও আগের ব্যায়াম এর রুটিন অনুযায়ী ব্যায়াম করতে হবে | কখন ব্যায়াম করবেন এটা আপনার উপর নির্ভর করবে | ইফতার এর পরে, তারাবির পরে, সেহেরি র পরে , সকালে বা বিকালে যেকোনো সময় করতে পারেন | তবে খাবার খাওয়ার অন্ততঃ একঘন্টা পরে ব্যায়াম করবেন | আমি ইফতারের এক ঘন্টা পরে ব্যায়াম করতে সচ্ছন্দ বোধ করি |রোজা রেখে ব্যায়াম না করা ই ভালো | কারণ ব্যায়াম এর ফলে শরীর থেকে ঘামের মাধ্যমে glucose বের হয়ে যায় | তাই রোজা রেখে পানি খেতে না পারার ফলে মাথা ঘুরতে পারে বা অগ্জ্ঞান হয়ে যেতে পারেন |
  • রোজার ব্যায়াম সাধারণত হালকা করাই ভালো | কারণ সারাদিন রোজা রেখে শরীর দুর্বল থাকে | দুর্বল শরীরে বেশি চাপ না দেয়াই ভালো |তাই যারা –৯০ মিনিটের ব্যায়াম করেন তারা  কমিয়ে ৬০ মিনিট করতে পারেন | যারা ৬০ মিনিট করেন তারা ৩০-৪৫ মিনিট করতে পারেন |যারা ৩০ মিনিট করেন তারা ১৫-২০ মিনিট করতে পারেন |
  • হালকা, মাঝারি , high intensity যে কোনো ধরনের ব্যায়াম করতে পারেন আপনার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে | কার্ডিও, yoga, pilates, aerobics, weight training, circuit, swimming সব ধরনের ব্যায়াম ই রোজায় করতে পারেন |
  • তবে প্রতিদিন ব্যায়াম দরকার নেই | সপ্তাহে দুই থেকে পাঁচ দিন করতে পারেন |একদিন পর পর ব্যায়াম করতে পারেন |
  • ব্যায়াম করার সময়, আগে ও পরে প্রচুর পানি খাবেন |
  • যারা বাইরে হাটেন অথবা বাসায় ট্রেড মিল এ হাটেন, তারা ইফতারের এক ঘন্টা পরে হাটাহাটি করতে পারেন | তবে সময় কমিয়ে দেয়া ই ভালো |যেমন: ৩০ মিনিট |ভরা পেটে কখনই ব্যায়াম করবেন না |
  • যারা নিয়মিত জিম এ যান তারা অনেকেই রোজায়  জিম এ যাওয়া  বন্ধ করে দেন | এটা ঠিক না | ফলে রোজার পরে আবার  জিম এ যাওয়া আলসেমি লাগতে পারে | জিম এ যাবার অভ্যাস  ঠিক রাখলে সুস্থ্য থাকা যাবে | যেমন : জিম এ গিয়ে আগের রুটিন ঠিক রেখে প্রতিটি ব্যায়াম কম সময় ধরে করতে পারেন |
  • আমি যেভাবে করি : জিমে গিয়ে ১০ মিনিট warm up করে , ১৫ মিনিট weight training (barbel, dumbbell, weight machine) করি | তারপর ৩০-৪৫ মিনিট aerobics বা  spinning করি | সবশেষে cool down ও stretching  করি |
  • যারা বিভিন্ন্ ধরন এর ব্যায়াম করেন, যেমন: cardio, aerobics, spinning, yoga, swimming, weight training , stretching ইত্যাদি তারা সব ধরনের ব্যায়ামই করার অভ্যাস রাখতে চেষ্টা করুন |
  • কার্ডিও এবং weight দুটাই করতে পারলে ভালো |
  • পেট যেন না বাড়ে সেদিকে খেয়াল রাখবেন সবসময় | পেট এর ব্যায়াম করুন নিয়মিত |
  • যারা জিম এ যেতে চান না বা সম্ভব না, বা কার্ডিও করতে চান না , তারা বাড়িতে বা জিম এ power yoga করতে পারেন |  তবে , যারা কখন ও এই ধরনের ব্যায়াম করেন নি তারা এটা না করা ই ভালো | এছাড়া ও শুধুমাত্র stretching অথবা power yoga অথবা weight training করেও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা ও shape ঠিক রাখা সম্ভব |
  • আমার আরেকটি প্রিয় ব্যায়াম হচ্ছে circuit training: এটি প্রতিটি muscle এর জন্য, না থেমে , কম সময়ে করা হয় | ফলে shaping  বা toning হয় ও calorie খরচ বেশি হয় | রোজা য় circuit training করতে পারেন | তবে এটি ৩০ থেকে ৪৫ মিনিট করাই ভালো |
  • বডি বিল্ডার রা রোজায় আগের মতই muscle build করার ব্যায়াম অব্যাহত রাখবেন | দয়া করে ভাজা পোড়া খেয়ে ও পানি কম খেয়ে muscle নষ্ট করবেন না | আগের মতই বেশি বেশি প্রোটিন খাবেন |
  • যারা toning করেন তারা আগের মতই করবেন, যাতে শেপ নষ্ট না হয় |
  • এছাড়াও আমার quick 15 minutes cardio করতে পারেন |
  • diabetes এর রোগী রা আগের মত ই নিয়মিত হাটবেন |
  • এছাড়াও তারাবিহর নামাজ পড়তে যাবার আগে বা পরে হাটা হাটি করতে পারেন | তারাবিহর নামাজের মাধ্যমেও অনেক ব্যায়াম হয় | নামাজের মাধ্যমে পা থেকে মাথা পর্যন্ত প্রতিটি অঙ্গের ব্যায়াম হয় |

সব শেষে একটা কথাই বলব ব্যায়াম, প্রচুর পানি ও balanced diet ই একমাত্র দিতে পারে রোজায় সুস্থ্য থাকার নিশ্চয়তা |  যারা ব্যায়াম করেন না তারা রোজায় নিয়ত করুন রোজার মাসের পরে ব্যায়াম শুরু করবেন | আর যারা ব্যায়াম করেন তারা রোজায় নিয়মিত ব্যায়াম করুন সব কিছু ঠিক রেখে | আপনার আরো কোনো প্রশ্ন থাকলে আমাকে করতে পারেন | আর রোজায় ব্যায়াম করে আমাকে জানান কেমন লাগছে |

রমজানে ফিট থাকুন সিরিজ এখানেই শেষ করছি | কেমন লাগলো আমাকে জানাবেন |

সবার রোজার জীবন সুস্থ্য, সুন্দর ,আনন্দময় হোক এই দোয়া করি |

বাংলায় কমেন্ট করতে এখানে ক্লিক করুন |

Image by : myyogaonline

Advertisements

2 responses to “রমজান মাসে ফিট থাকুন: পর্ব ৩: রোজার ব্যায়াম Ramadan Fitness Series: Part 3: Exercise During Ramadan

  1. Thank you very much for visiting my fitness blog. Also thank you for your nice comment and suggestion.Please pray for the success of my blog.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s