Low Calorie Carrot Halwa কম ক্যালরি যুক্ত গাজরের হালুয়া

মিষ্টি খাবার খাওয়ার প্রবণতা কম বেশি সবার মাঝেই থাকে| তাই, মিষ্টি খাবার খাওয়ার ইচ্ছা আমাদের প্রায়ই হয়ে থাকে| ঘন ঘন মিষ্টি খাবার খেলে ওজন তো বাড়বেই, সেই সাথে ওজন সম্পর্কিত অন্যান্য অসুখও হতে পারে| সাধারণত: আমরা বাড়িতে যে রকম গাজরের হালুয়া খাই, তাতে অনেক ক্যালরি থাকে| একবারে এত ক্যালরি যুক্ত খাবার খাওয়া ঠিক নয়|
তাছাড়া সাধারণত: চিনির কোনো দরকার আমাদের শরীরে নেই| তাই যখন আপনাদের মিষ্টি খাবার খেতে ইচ্ছা করবে তখন এই মজাদার গাজরের হালুয়া  খেয়ে মিষ্টি খাওয়ার ইচ্ছা মেটাতে পারেন| এতে করে আপনার ওজনের সমস্যা বা অন্যান্য শারীরিক সমস্যা, যেমন: ডায়বেটিস বাড়ার সম্ভাবনা নেই|

গাজর একটি অত্যন্ত পুষ্টিকর সবজি| এতে আছে ভিটামিন এ , সি, ডি, কে, বি১, বি৬, লাইকোপেন, বিটা ও গামা ক্যারোটিন, মিনারেল, চিনি, biotin, potassium,  calcium, magnesium, phosphorus, organic sodium,ফাইবার, ও anti oxidants| তাই গাজর আমাদের স্বাস্থের জন্য,  আমাদের ত্বক ও চোখের জন্য খুবই ভালো||  ক্যান্সার প্রতিরোধ করা ছাড়াও বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ও রোগ সারাতেও গাজর ভূমিকা রাখে|

দুধ দেবার ফলে এতে থাকছে ক্যালসিয়াম, আমিষ| বাদাম থেকেও পাওয়া যাবে আমিষ, ফাইবার, Anti-oxidants, ওমেগা ৩| কিশমিশেও আছে অনেক ভিটামিন, ও ফাইবার|

সাধারণত: আমরা চিনি, ফ্যাট যুক্ত দুধ, মাওয়া  ও ঘি দিয়ে উচ্চ ক্যালরি ও ফ্যাট যুক্ত গাজরের হালুয়া খাই| কিন্তু এই রেসিপিতে কম ফ্যাট বা ননী বিহীন দুধ ব্যবহার করা হয়েছে, তাছাড়া চিনির পরিবর্তে ডায়েট সুগার ব্যবহার করে ক্যালরি কমানো হয়েছে| মাওয়ার পরিবর্তে ব্যবহার করা হয়েছে কম ফ্যাট যুক্ত গুড়া দুধ| তাছাড়া কিশমিশ, বাদাম দেবার ফলে এটি হয়েছে আরো হেলদি|
উপকরণ:
গাজর মধ্যম আকার –দুইটি|
কম ফ্যাট যুক্ত তরল দুধ — দুই কাপ
কম ফ্যাট যুক্ত গুড়া দুধ–২ টেবিল চামচ
জিরো ক্যাল/ Stevia/ ডায়েট সুগার    –৩ টি স্যাশে
পেস্তা/ কাঠ বাদাম/ কাজু বাদাম কুচি ও কিশমিশ — দুই টেবিল চামচ
এলাচি গুড়া– ১/২ চা চামচ
তেল/ ঘি — ১ টেবিল চামচ

প্রণালী:

প্রথমে গাজর ভালো ভাবে ধুয়ে পাতলা করে চামড়া ছুলে নিন|

এবার সবজি কুরুনী দিয়ে গাজর গ্রেট করে নিন| নিচের ছবির মত| দুইটি গাজর থেকে ৪ কাপের মত হবে|

সবজি কুরুনোর যন্ত্র দিয়ে গাজর কুরিয়ে নিতে হবে

গাজর কুরানোর পরে

এবার কড়াইতে দুই কাপ দুধ জ্বাল দিয়ে নিন|

এখন এতে কুরানো গাজর দিন| সিদ্ধ করুন ভালো মত|

গাজর নরম হয়ে এলে ও দুধ একদম শুকিয়ে গেলে নামিয়ে নিন|

অন্য একটি কড়াইতে তেল/ঘি দিন| গরম হলে ,সিদ্ধ করা গাজর দিন| ৫ মিনিট অনবরত নাড়ুন|

এখন এতে ডায়েট সুগার দিন| ভালো ভাবে মিশিয়ে গুড়া দুধ দিন| ভালো মত নাড়ুন|

গুড়া দুধ মিশে গেলে এলাচি গুড়া দিন, নাড়ুন|

চুলা থেকে নামিয়ে সার্ভিং ডিশে ঢালুন| উপরে সামান্য গুড়া দুধ ছিটিয়ে দিন |
তারপর বাদাম কুচি ও কিশমিশ দিয়ে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন দারুন স্বাদের ও পুষ্টিকর গাজরের হালুয়া |

খাদ্য উপাদান  : ফ্যাট, আমিষ,শর্করা, ফাইবার, ভিটামিন ও মিনারেলস|

৬ পরিবেশন বা ৬ জন এই পরিমান হালুয়া খেতে পারবেন|

গাজর কাঁচা খাবার চাইতে রান্না করা খেলেই শরীরের জন্য ভালো| তাই নি:স্বন্দেহে বলা যায় এই রেসিপিটি খুবই হেলদি একটি স্ন্যাকস| তাছাড়া এই রেসিপিটি করতে উপকরণ ও সময় কম লাগে তাই এটি চটজলদি তৈরী করতে পারেন ও রান্না করে ৩/৪ দিন ফ্রিজে রেখে খেতে পারেন|

এই রেসিপিতে কেমন লাগলো তা জানান| আর ভালো লাগলে অন্য কারো সাথে শেয়ার করুন|

ফিটনেস বাংলাদেশের লেখা ভালো লাগলে, ইমেইলে নিয়মিত নতুন পোস্ট পেতে উপরে ডান দিকে আপনার ইমেল ঠিকানাটি লিখে subscribe করুন|

Image Credit:  I Believe I Can Fry,  falsedan

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s